আফগানিস্তানের মেয়ে আরশি 

0
5

গত দু-তিন বছর ধরে আরশি খানের নাম ছোট পর্দার দর্শকদের কাছে খুবই পরিচিত হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে বিগ বস-এর দু’টি মরসুমে অংশগ্রহণ করার পর থেকে তাঁকে এক নামে চেনেন দর্শকরা।

তিনি মুম্বইয়ের টেলি-জগতের পরিচিত মুখ।আরও একটি কারণে আরশির পরিচিতি বেড়েছে।তা হল বিতর্ক,বার বারই নানা মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন আরশি। সেটাই যেন তাঁর হাতিয়ার।বিতর্কই তাঁকে প্রচারে রেখেছে বরাবর।এক বার সলমন খানের জন্য নগ্ন হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে নিজের সাহসী ছবি টুইটারে পোস্ট করেছিলেন।তাতে সলমনকে ট্যাগ করে লিখেছিলেন, এটা তাঁর ডার্লিংয়ের জন্য।এর পর ২০১৬ সালে ফের আরও এক বিতর্ক নিয়ে হাজির হন তিনি। দেহব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুণের একটি চারতারা হোটেলের ঘর থেকে আরশিকে গ্রেফতার করে পুণে সিটি ক্রাইম ব্র্যাঞ্চ।যদিও আরশির দাবি ছিল, তিনি সম্পূর্ণ নির্দোষ।এর মধ্যে,বড় দুর্ঘটনায় পড়েছেন মডেল-অভিনেত্রী আরশি খান।দিল্লির মালব্য নগরের শিবালিক রোড-এ তাঁর গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। প্রাণে বেঁচে গেলেও তিনি বুকে আঘাত পেয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।গাড়িতে তাঁর এক সহযোগীও ছিলেন। তিনিও আঘাত পেয়েছেন। দু’জনকেই দিল্লির একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।মুম্বইয়ের টেলি-জগতের পরিচিত মুখ হলেও আরশি কিন্তু এ দেশে জন্মাননি। তিনি প্রকৃতপক্ষে আফগানিস্তানের মেয়ে।চার বছর বয়সে আফগানিস্তান থেকে মা-বাবার সঙ্গে ভারতে চলে আসেন আরশি খান। তার পর মধ্যপ্রদেশের ভোপালেই তাঁর বেড়ে ওঠা।মডেলিং এবং তার পর অভিনয়ের দিকে ঝোঁকার আগেই তিনি নিজের পড়াশোনা সম্পূর্ণ করেছিলেন ভোপাল থেকে। আরশি এক জন পেশাদার ফিজিওথেরাপিস্ট।দ্য লাস্ট এম্পেরর নামে একটি হিন্দি ছবিতে বলিউডে অভিষেক হয় তাঁর। একটি তামিল ছবিতেও কাজ করেছেন।মুম্বইয়ে পা রেখে মডেলিং এবং অভিনয় জগতে পা দেওয়ার পর থেকেই বিতর্কে জড়িয়েছেন তিনি।২০১৫ সালে পাক ক্রিকেটার শাহিদ আফ্রিদির সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক রয়েছে বলে দাবি করে বিতর্কে জড়ান তিনি। টুইটারে তিনি লিখেছিলেন,আফ্রিদির সঙ্গে যৌন সম্পর্ক হয়েছে। কার শয্যাসঙ্গিনী হবেন, সে ব্যাপারে মিডিয়ার অনুমতি নিতে হবে নাকি? এটা ব্যক্তিগত ব্যাপার।আরশি খানের কাছে সম্পর্কটা ছিল ভালবাসার।এর মাস খানেক পর আরশি টুইটে আরও এক বিস্ফোরণ ঘটান।আরশি দাবি করেন, তাঁর গর্ভে রয়েছে আফ্রিদির সন্তান।তিনি টুইট করেছিলেন, প্রেমিক হিসাবে আফ্রিদি ১০০-তে ১০০ পাবে।বিছানাতেও দারুণ।আর মাত্র ছ’মাস। তার পর আফ্রিদির সন্তানের জন্ম দেবেন।২০১৬ সালে এই টুইট করেছিলেন আরশি। সন্তানের জন্ম দেওয়ার খবর অবশ্য ২০২১ পর্যন্ত প্রকাশিত হয়নি।তাঁর নাকি সবটাই মিথ্যা, সাজানো। এ রকম অভিযোগ করেছিলেন ভোপালের মডেল-অভিনেত্রী গহনা বশিষ্ট। বয়স থেকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, নিজের সম্পর্কে সব কিছুই মিথ্যে বলেছেন আরশি, দাবি করেন গহনা।