রান্নায় নুনের বিকল্প

0
4

সুস্থ থাকার জন্য প্রত্যেক দিন পাঁচ গ্রামের বেশি নুন খাওয়া উচিত নয়।রান্নায় কম নুন দিলেও অনেক সময়ই সেই মাত্রা পেরিয়ে যায়। কারণ সারা দিনে এমন অনেক খাবার খাওয়া হয়,যাতে এমনিই বাড়তি নুন দেওয়া থাকে।বিশেষ করে যাঁরা চিপ্‌স-ভাজাভুজি বা অন্য জাঙ্ক ফুড বেশ খান, তাঁদের শরীরে নুন বেশি পরিমাণে যায় বইকি।

তাই রান্নায় নুনের পরিমাণ কমানোর কিছু উপায় জানা থাকলে ভাল। নুন বিকল্প কী কী হতে পারে ? উত্তর হলো ,অনেক কিছু।যদি রান্না ধনেপাতা পড়ে, তা হলে নুন কম লাগে। স্যালাড বানালেও নুনের বদলে ধনেপাতা দিতে পারে।ধনেপাতায় রয়েছে আয়রন, ভিটামিন কে, ভিটামিন সি এবং ম্যাগনেশিয়াম রয়েছে। তাই শরীরে জরুরি পুষ্টিগুণও থাকে।আবার,নুনের বিকল্প হিসাবে অরিগ্যানো দারুণ কাজে দেয়।ডিম সিদ্ধ খাওয়ার সময়ে নুন দিয়ে খান,তার বদলে অরিগ্যানো দিতে পারেন। অরিগ্যানো অনেক খাবারেই স্বাদ বাড়ানোর জন্য দেওয়া যেতে পারে।পেটের এবং শ্বাসনালীর যত্ন নেয় অরিগ্যানো।আবার,আলুসেদ্ধ খাওায়ার সময়ই একগাদা কাঁচা নুন দিয়ে না দিয়ে তার বদলে রোজমেরি দিতে পারেন।এই সুগন্ধি লতা মস্তিষ্ক ভাল রাখে,স্মৃতিশক্তি বাড়ায় এবং হজমক্ষমতা ভাল করে।রোজমেরি পাতা গুঁড়ো করে ডিমেরও নানা পদে দিতে পারেন। পাশাপাশি,পুদিনা পাতাও নানা রকম খাবারে দিতে পারেন।যে কোনও খাবারের স্বাদ বদল করে দিতে পারে এই পাতা।নোনতা খাবার ছাড়াও মিষ্টি বা শরবতেও ব্যবহার করা যায় পুদিনা। লস্যি বানালে নুনের বদলে পুদিনা দিতে পারেন।এছাড়া,ইটালিয়ান বেসিলও চমৎকার কাজ দেয় নুনের বদলে। স্যুপ, নুড্‌ল বা পিৎজ্জা জাতীয় কোনও পদে অনায়াসে দিতে পারেন বেসিল।তা হলে নুন তুলনায় অনেকটা কম লাগবে।