টিআরপি তো কেনাই যায় : বিপ্লব 

0
14

বড় পর্দায় বিপ্লব চট্টোপাধ্যায়কে শেষ দেখা গিয়েছে পাভেলের অসুর ছবিতে।সেখানে নুসরত জাহানের বাবা তিনি।ইতিবাচক চরিত্রে তাঁর অভিনয় দর্শক-সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে।বাংলা ছবির জনপ্রিয় খলনায়ক বিপ্লব চট্টোপাধ্যায় এ বার ছোট পর্দায়।

মহাপীঠ তারাপীঠ-এ। অভিনেতা জানিয়েছেন, এক বয়স্ক কীর্তনিয়ার চরিত্রে অভিনয় করছেন।নাম বিষ্ণুদাস, তাঁর লিপে কীর্তন গান আছে। অভিনয় করতে বেশ লাগছে।বড় পর্দার দাপুটে খলনায়ক ছোট পর্দায় কীর্তনিয়া? বিপ্লব বরাবরের মতোই স্পষ্টবাদী বলেছেন,আগেও অনেক ছবিতে ভদ্রলোকের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। আদু, মৌন মুখর-র মতো ছবি তার উদাহরণ।এই ধরনের ছবির কথা কেউ মনে রাখে না। বিপ্লব চট্টোপাধ্যায় মন থেকে চান, এই ধরনের চরিত্রই তাঁকে দেওয়া হোক।আক্ষেপ, তাঁকে ঠিক মতো ব্যবহার করে নি টলিউড। দাবি,পরিচালকদের তাঁকে কেবল খলনায়ক হিসেবেই পছন্দ।ফলে,ওই এক ধরনের চরিত্রে অভিনয় করতে করতে বিপ্লবও ক্লান্ত। অপেক্ষায় থাকেন,কখন তাঁকে ভদ্রলোকের চরিত্রে ডাকা হবে। অভিনয়ের সুযোগ পাবেন।মহাপীঠ তারাপীঠ-এর চিত্রনাট্য অনুযায়ী বিপ্লব ওরফে বিষ্ণুদাস এক কালের নামী কীর্তনিয়া।বয়সের ভারে আর আগের মতো গাইতে পারেন না।অভাবের সংসারে তাঁর সঙ্গে থাকেন পালিতা অনাথ নাতনি রাধারানি।তাকে তিনি বিয়ে করতে চান।কিন্তু অভাব সেই বাদ সেধেছে। বিষ্ণুদাসের পাশে দাঁড়াতে তাঁর কুটিরে পা রাখবেন সাধক বামদেব।বিপ্লব জানিয়েছেন,তিন দিনের শ্যুট হয়ে গিয়েছে।আরও হয়তো কয়েক দিন শ্যুট হবে।