পুজোয় রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতিতে নজর মুখ্যমন্ত্রীর

0
12

তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ এবং আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের জোরালো সওয়ালও পুজো নিয়ে আদালতের নির্দেশে গুরুত্বপূর্ণ কিছু বদল আনতে পারেনি।

বুধবার সকালে ফোরাম ফর দুর্গোৎসব কমিটির তরফে পুজো মণ্ডপে অন্তত একশো জন দর্শনার্থী একসঙ্গে দেখার অনুমতি দেওয়ার জন্য আদালতে আবেদন করে। সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে পুজো পালনের প্রতিশ্রুতিও দেওয়া হয় আদালতে। আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবেদন ছিল, যদি অন্তত পনেরো দিন আগেও আদালতের তরফে এই নির্দেশ দেওয়া হত, তবে, পুজো উদ্যোক্তাদের সুবিধা হত। কারণ, একদম শেষ মুহূর্তে আদালতের নির্দেশে তা কার্যকর করতে প্রচণ্ড সমস্যায় পড়তে হবে। বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজো পালনে সতর্কতা বজায় রেখেও অনুমতি দেওয়ার আবেদন জানান আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু বিচারপতিরা জানিয়ে দেন, পুজোর প্রথা মেনে ঢাকিদের মণ্ডপ লাগোয়া নো এন্ট্রি জোনে রাখা যাবে। সেই সঙ্গে, ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দফায় দফায় যাতে পুজোতে স্থানীয় মানুষের অংশগ্রহণ থাকে, তা নিশ্চিত করতেই নূ্যনতম তিনশো বর্গমিটারের মণ্ডপে উদ্যোক্তা সহ পনেরোজনের উপস্থিতির অনুমতি দেওয়া হয়। মাঝারি পুজোর ক্ষেত্রে যা পঁয়তাল্লিশ এবং বড় পুজোর ক্ষেত্রে ষাট জন। আর ষষ্ঠী থেকে দশমী, এই তালিকায় বদলানো যাবে।