ইদে ঘড়ে থাকুন ঃ মুখ্য়মন্ত্রী

0
3

Last Updated on by

করোনা, লকডাউন নিয়ে ব্যস্ততা, পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানোর তৎপরতার মধ্যেই আমপানের দুর্যোগ। আর তার জেরে সামাজিক দূরত্বের এক রকম দফারফা হয়ে গিয়েছে। 

গাছ, বিদ্যুতের খুঁটি, বাড়ির চালের সঙ্গে বহু জায়গায় উড়ে গিয়েছে কনটেনমেন্ট জোনের ব্যারিকেডও। ফলে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা নতুন করে চিন্তা বাড়াচ্ছে প্রশাসনের। এর উপর আগামীকাল, সোমবার থেকে আন্তঃরাজ্য বিমান পরিষেবাও চালু করে দিচ্ছে কেন্দ্র।এই পরিস্থিতিতে বাইরে থেকে লোকজন রাজ্যে ঢুকতে শুরু করলে আমপান দুর্যোগের মধ্যে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা আরও বাড়বে বলে মনে করছে রাজ্য প্রশাসন। সোমবার ঈদ। করোনা সতর্কতার মধ্যে ঈদের সময়ও যাতে কেউ লকডাউনের নিয়ম না-ভাঙেন, তার জন্য আবেদন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীর আবেদন,এ বার বাড়িতেই প্রার্থনা করুন। আপনাদের যেমন খারাপ লাগে, আমারও তেমন খারাপ লাগে। কিন্তু ইচ্ছে থাকলেও উপায় নেই। একসঙ্গে সকলে মিলে বসলে এক সেকেন্ডে রোগটা ছড়িয়ে যাবে। ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে শহরের অনেক জায়গায় মিলেমিশে একাকার কনটেনমেন্ট জোন ও বাকি এলাকা। এর ফলে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। পুলিশ-পুরসভার উদ্যোগে যে সব জায়গায় বাঁশ, লোহার ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছিল, সে সবই উড়িয়ে নিয়ে গিয়েছে আমপান । কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম যদিও জানিয়েছেন, যে সমস্ত এলাকায় কনটেনমেন্ট জোনের বেড়া ভেঙে গিয়েছে, সেগুলিকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার নির্দেশ বরো কো-অর্ডিনেটদের দেওয়া হয়েছে। পুলিশের সহযোগিতা নিতে বলা হয়েছে। পুরসভা সূত্রে খবর, বর্তমানে কলকাতায় কনটেনমেন্ট জোনের সংখ্যা ২৭৮।