রাজ্যে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মৃত ৬, একই পরিবারের ৩

0
10
খড়দহের পাতুলিয়া আবাসনে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে একই পরিবারের ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। ঘরের মধ্যে জমা জলে  বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে গৃহকর্তা ও তাঁর স্ত্রী এবং বড় ছেলের। 
মোবাইল ফোনে চার্জ দিতে গিয়ে প্রথমে  বিদ্যুৎপৃষ্ট হন গৃহকর্তা। স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে  বিদ্যুৎপৃষ্ট  স্ত্রী এবং শেষে মাকে বাঁচাতে গিয়ে  বিদ্যুৎপৃষ্ট  হয়েছে বড় ছেলে। পরিবারের একমাত্র জীবিত সদস্য ছোট ছেলে। যার বয়স মাত্র ৪ বছর। খড়দহের পাতুলিয়ার আবাসনের একতলায় পরিবারটি থাকত। গত দুদিনের বৃষ্টিতে ঘরের মধ্যে জল জমেছিল। মঙ্গলবার বিকেলে এই অবস্থাতেই মোবাইলে চার্জ দিতে গিয়ে  বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে একে একে পুরো পরিবারই মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়ে। এদিকে টিটাগড়ে জমা জলে  বিদ্যুৎপৃষ্ট  হয়ে এক ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। দিদিকে কোচিনে দিয়ে ফেরার সময় রাস্তায় জমে থাকা জলে  বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে শান্তিনগর হাইস্কুলের ক্লাস এইটের ছাত্র হীরালালের। অন্যদিকে ত্রাণ দিতে গিয়ে পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুরে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। ভগবানপুর ১ নং ব্লকের বহু এলাকা জলমগ্ন। ভপতিনগর থানার ইটাবেড়িয়া পঞ্চায়েতের বিস্তীর্ণ এলাকায় ঢুকেছে কেলেঘাইয়ে জল। জলবন্দি বহু পরিবার। সোমবার রাতে নৌকায় করে ইটাবেড়িয়া পঞ্চায়েত অফিস থেকে ত্রাণ নিয়ে বেরিয়েছিলেন প্রধান সহ বেশ কয়েকজন। তখনই নদীর পাড়ে ঝুলে থাকা বিদ্যুতের তারে নৌকা জড়িয়ে যায়।  বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় নৌকায় বসে থাকা প্রদীপ মাইতি ও নন্দন মণ্ডলের।