সুশান্তকে জানানোর পরেই আত্মহত্যা দিশার

0
5

৮ জুন নিজের ফ্ল্যাট থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন দিশা সালিয়ান। পার্টির চলাকালে আচমকা দিশা কেন আত্মহত্যা করলেন, তা নিয়ে প্রশ্নের মধ্যেই ১৪ জুন গলায় ফাঁস দিয়ে নিজের জীবন শেষ করে দেন সুশান্ত সিং রাজপুত। 

দিশার আত্মহত্যার সঙ্গে সুশান্তের মৃত্যুর কোনো যোগ রয়েছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। মুম্বাই পুলিশ বিষয়টি নাকচ করে দিলেও, বিহার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে দুটি বিষয় নিয়েই। সম্প্রতি সুশান্তের জন্য বিচার চেয়ে যে ,ইনসাফ এসএসআর নামে একটি ক্যাম্পেন শুরু হয়েছে, তার মুখ হিসেবে সাক্ষাৎকারে হাজির হন প্রশান্ত কুমার নামে এক ব্যক্তি। সেখানে তিনি দাবি করেছেন,সম্প্রতি একটি অচেনা নম্বর থেকে একটি ফোন আসে তাঁর কাছে। সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তে তিনি প্রশান্ত কুমারদের তথ্য দিয়ে সাহায্য করতে চান বলে দাবি করেন। কিন্তু মুম্বাইয়ে থাকার জন্য নিজের নাম যাতে বাইরে না আসে, সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে চান বলে অচেনা ব্যক্তি জানান প্রশান্ত কুমারকে।প্রশান্তের দাবি, ওই ব্যক্তি তাঁকে জানিয়েছেন,৮ জুন যে পার্টিতে দিশা হাজির হন, সেখানে একাধিক তারকা এবং রাজনৈতিক নেতা হাজির ছিলেন।পার্টি চলাকালে দিশার কাছে একটি ফোন আসে। সেই ফোন আসার পর ভয় পেয়ে যান দিশা। সঙ্গে সঙ্গে তিনি বিষয়টি সুশান্তকে জানান। দিশা যাতে ভয় না পেয়ে তখনই ওই পার্টি থেকে বেরিয়ে আসেন, সে বিষয়ে জানান সুশান্ত। শুধু তাই নয়, তিনি বিষয়টি দেখবেন বলেও দিশাকে আশ্বস্ত করেন। সুশান্তের ফোন রাখার পর আচমকাই বহুতল ভবনের ওপর  থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন দিশা। সন্দীপ সিং যখন সুশান্তকে দিশার আত্মহত্যার খবর ফোন করে জানান, তখন চিৎকার করে ওঠেন সুশান্ত। এর পরই সুশান্তের সঙ্গে রিয়ার ঝামেলা শুরু হয়। দিশার মৃত্যু সুশান্ত কিছুতেই মেনে নিতে পারছিলেন না; কিন্তু রিয়া বুঝতে চাননি সুশান্তের মনের অবস্থা। এর পরই সুশান্তের ফ্ল্যাট ছেড়ে রিয়া চলে যান বলে প্রশান্ত কুমারকে ওই ব্যক্তি জানান বলে দাবি করা হয়।