সুযোগ পেলেই বিয়ারে চুমুক

0
8

বিয়ার স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর নাকি উপকারী, তা নিয়ে বিতর্ক  চলছেই। নিয়মিত অ্যালকোহল গ্রহণ লিভার ও কিডনিতে প্রভাব ফেলে তা প্রমাণিত।কিন্তু সম্প্রতি এক গবেষণায় উঠে এসেছে ভিন্ন এক মত।

এক অ্যানালিসিস অনুসারে,স্পেনের পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান বিশেষজ্ঞদের একটি দল কিছু গবেষণা চালিয়ে গিয়েছেন।তাতে দেখা গিয়েছে পরিমিত বিয়ার পান শরীরের উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে। বিয়ারের মতো অ্যালকোহল যুক্ত পানীয় সামগ্রিক স্বাস্থ্য ও সুস্থতাকেও প্রভাবিত করে।মদ্যপান হৃদ্‌যন্ত্রের জন্য সবচেয়ে ক্ষতিকর বলে মত অধিকাংশের।তবে সাম্প্রতিক গবেষণা বলছে,পরিমিত বিয়ার হৃদ্‌যন্ত্রকে ভাল রাখে।সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে,ডায়াবিটিস রোগীদের জন্যে মদ্যপান বিষের সমান। এতে রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা ব্যাহত হয়।কিন্তু গবেষণায় দেখা যাচ্ছে যে, মাঝে মাঝে বিয়ার খাওয়া ব্যক্তিদের তুলনায় যাঁরা বিয়ার পান থেকে বিরত থাকছেন তাঁদের ডায়াবিটিসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেশি।কারণ বিয়ার ডায়াবিটিসের বিরুদ্ধে মজবুত প্রতিরোধ শক্তি গড়ে তুলতে সাহায্য করে।অন্যদিকে,বিয়ারে উপস্থিতি ফাইটোস্ট্রোজন,প্রেনিলনারিনজেনিন ইত্যাদি বিভিন্ন উপাদান শরীরের হাড়কে দৃঢ় ও মজবুত করে। হাড়ের পাশাপাশি দাঁতের স্বাস্থ্য উন্নত করতেও বিয়ার বেশ উপকারী।আবার,অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট, খনিজ উপাদান সমৃদ্ধ বিয়ারে অ্যালকোহলের পরিমাণ ৫-৭ শতাংশ। বিয়ার কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে।অন্যদের তুলনায় বেশি সুস্থ থাকে। কার্ডিওভাসকুলার রোগের আশঙ্কাও অনেকাংশে কম থাকে।