কৃষি আইন বাতিল হবে না  

0
119

পার্থ মুখোপাধ্যায় 

কৃষক আন্দোলনে উত্তাল দেশ, চাষিদের বিক্ষোভে শীতের মরশুমেও উত্তপ্ত সিংঘু সীমান্ত।  এই পরিস্থিতিতে কৃষি আইনের সমর্থনে মধ্যপ্রদেশের কৃষকদের উন্নয়নের গল্প শুনিয়েছেন আবেগপ্রবণ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।শুক্রবার মধ্যপ্রদেশের রায়সেন জেলায় অনুষ্ঠিত কিষান কল্যাণ অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখতে গিয়ে কেন্দ্রের তিনটি নতুন কৃষি আইন নিয়ে বিতর্কের বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেছেন, আমি সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলির কাছে হাতজোড় করছি, আপনারাই সমস্ত কৃতিত্ব নিন, আমি আপনাদের নির্বাচনী ইশতেহারগুলিকে কৃতিত্ব দিচ্ছি। আমি শুধু চাই কৃষকদের জীবন আরও সহজ হয়ে উঠুক। কৃষিক্ষেত্রে আধুনিকীকরণ ও উন্নয়ন চাই আমি। ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য দেওয়া হবে।কৃষি আইনের সমর্থনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, এই আইন একরাতে তৈরি হয়নি। বিগত ২০ থেকে ৩০ বছর ধরে কেন্দ্র, রাজ্য, অর্থনীতিবিদ ও কৃষকদের সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনার পর এই আইনের রূপরেখা তৈরি করা হয়েছে। আজ অনেক কৃষকদের কিষান ক্রেডিট কার্ড দেওয়া হয়েছে। মধ্যপ্রদেশের ১৬ লক্ষ কৃষকদের ব্যাংক খাতায় ১৬ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ন্যূনতম সহায়ক মূল্য নিয়ে একটা ভীতি তৈরি হয়েছে কৃষকদের মধ্যে।  কিন্তু সরকার তাঁদের আশ্বাস দিচ্ছে সহায়ক মূল্য যেমন আগে ছিল তেমনই থাকবে। এটা তুলে নেওয়া হচ্ছে না। এ নিয়ে অহেতুক ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই।মান্ডি ব্যবস্থার প্রসঙ্গও তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। তাঁর কথায়, কৃষকদের হাতে বিকল্প ব্যবস্থা তুলে দেওয়া হয়েছে। তাঁরা মনে করলে মান্ডিতে তাঁদের ফসল বিক্রি করতে পারেন। যদি সেখানে বিক্রি করতে না চান তাঁরা বাইরেও বিক্রি করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে কৃষকদের ছাড় দেওয়া হয়েছে।কৃষকদের সুবিধার জন্য কিসান ক্রেডিট কার্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু আগে এই সুবিধা সব কৃষক পেতেন না বলে দাবি করেছেন মোদী। সেই সঙ্গে তিনি এটাও জানিয়েছেন, কৃষিক্ষেত্রে যে ভাবে গত ৫-৬ বছর ধরে প্রযুক্তিগত পরিকাঠামো গড়ে তোলা হয়েছে কৃষকদের জন্য, বিশ্বজুড়ে সেই প্রচেষ্টা বহু প্রশংসিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন,আজ যারা কৃষি আইন নিয়ে আওয়াজ তুলছেন, এক সময় তারাই কৃষি আইনের পক্ষে ছিলেন। কৃষিক্ষেত্রে সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। এর পরই কটাক্ষ করে তাঁর মন্তব্য,সেই সব গালভরা প্রতিশ্রুতি গেল কোথায়? আমি চাই, কৃষকরা তাদের জিজ্ঞাসা করুন।

আসলে ,নিজের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এটা স্পষ্ট করে দিচ্ছেন যে বিরোধিতা শুধুমাত্র বিরোধিতার জন্য আইনটির প্রতিবাদ করছেন। ক্ষমতায় থাকতে তারাই আইনটি প্রণয়ন করার কথা বলেছিলেন। অথচ এখন তারা কৃষকদের ভুল বোঝাচ্ছেন। কৃষকদের উদ্দেশে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান জানিয়েছেন,কিষান মান্ডিগুলিকে বন্ধ করা হবে না। সব মিলিয়ে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পরিষ্কার করে দিয়েছেন যে কৃষকদের উন্নয়নের কথা ভেবেই নতুন আইন আনা হয়েছে। তাই আপাতত কৃষি আইন বাতিল হবে না।