স্ত্রী দেহ আগলে বসে স্বামী, বেধড়ক মার

0
3
স্ত্রী-র পচাগলা দেহ আগলে বসে থাকার ঘটনায় উত্তপ্ত অশোকনগরে স্বামীকে মারধর করে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে উত্তেজিত জনতা। এমন ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে।

মৃতা স্ত্রী মালা দত্তের পরিবারের অভিযোগ, স্নায়ুর সমস্যায় ভুগলেও ডাক্তার না দেখিয়ে বিনা চিকিৎসায় তাকে রেখে দিয়েছিলেন স্বামী কল্যাণ দত্ত। অশোকনগরের সুভাষপল্লি এলাকার বাসিন্দা কল্যাণ দত্ত-র বাড়ি থেকে গত কয়েকদিন ধরেই পচা গন্ধ পাচ্ছিলেন স্থানীয়রা। বিষয়টিতে সন্দেহ হওয়ায় এলাকার মানুষই পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছে বাড়িতে ঢুকে দেখে স্বামী কল্যাণ তাঁর বছর চল্লিশের স্ত্রী মালা-র দেহ আগলে বসে রয়েছেন। স্বামীর দাবি, তাদের একমাত্র ছেলে অর্ঘ্যরও শারীরিক সমস্যা রয়েছে। ফলে, স্ত্রী মারা গেলেও, তিনি কাউকে খবর দেননি। এমনকী দেহ বাড়ি থেকে বের করার বিষয়ে কোনও উদ্যোগও নেননি। এর মধ্যে বিষয়টি জানতে পারে মৃতার বাড়ির লোক পৌঁছয়। আর মালাকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে তাদের ক্ষোভের বাঁধ ভাঙে। মৃতার বাড়ির লোকেরা স্বামী কল্যাণকে বেধড়ক মারধর করে। এর মধ্যে পুলিশ দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। সেই সঙ্গে স্বামী কল্যাণকেও আটক করেছে। আর বাবার সুরে সুর মিলিয়ে ছেলে অর্ঘ্যও জানিয়েছে, সে অসুস্থ থাকায় তাকে কিছু জানানো হয়নি। দেহও বের করা হয়নি। কী কারণে মৃত্যু মালার তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।