জয়েন্ট বিডিও-র চাকরি ছেড়ে প্রাইমারি টিচার

0
25
জয়েন্ট বিডিও-র চাকরি ছেড়ে প্রাইমারি স্কুলে শিক্ষকতার চাকরি মালদহের আশিস নায়েক যোগ দেওয়ায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে। তবে, অন্যান্যরা শোরগোল করলেও, নিজের লক্ষ্যে স্থির রয়েছেন মালদহের বামনগোলার জয়েন্ট বিডিও আশিস নায়েক।
জয়েন্ট বিডিও হিসেবে আর করবেন না সমষ্টি গঠনের কাজ। তবে, জয়েন্ট বিডিও-র মতো প্রশাসনিক পদ থেকে সরে শিক্ষক হিসেবে কাজে যোগ দেওয়ার খবরে রীতিমতো ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। সূত্রের খবর, জযে্ট বিডিও-র পদ থেকে মাস ছয়েক আগে ইস্তফাপত্র দিয়েছিলেন আশিস। সম্প্রতি সেই ইস্তফাপত্র গৃহীত হয়েছে। গত নয়ই নভেম্বর রাজ্যের পঞ্চায়ে এবং গ্রামোন্নয়ন দফতরের জয়েন্ট বিডিও আশিস নায়েকে সে কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। স্কুলের চাকরি থেকে সরকারি অফিসারের কাজে যোগ দেওয়া সাধারণ ব্যাপার হিসেবে গণ্য করা হয়। কিন্তু স্রোতের বিপরীতে আশিসের হাঁটার পিছনে কারণ কী, কেন তিনি এমন পদক্ষেপ করলেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। তবে, আশিস গোটা বিষয়টিকে ব্যক্তিগত ব্যাপার বলে এড়িয়ে গিয়ে জানিয়েছেন, এ ব্যাপারে কোনও বিতর্ক নেই। এদিকে, সদ্য জয়েন্ট বিডিও-র চাকরি ছাড়া আশিস নায়েকের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন রাজ্যে সেচ দফতর এবং উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী সাবিনা ইযাসমিন। মন্ত্রী নিজেও এক সময় কালিয়াচক কলেজের অধ্যাপিকা ছিলেন। রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার সেই কাজ থেকে তাঁকে সরে আসতে হয়েছে। এই অবস্থায় মন্ত্রীকে পাশে পেয়েছেন প্রাইমারি টিচার আশিস নায়েক।