সুশান্তের মৃত্যু, সোচ্চার কঙ্গনা

0
12

প্রতিবাদী হিসেবে সুনাম এবং দুর্নাম, ইন্ডাস্ট্রিতে দুইয়েরই ভাগীদার হয়েছেন কঙ্গনা রানাউত। সুশান্ত সিংহ রাজপুতের অকালমৃত্যুর পর তীব্র ভাষায় সোচ্চার হয়ে নিজের ভাবমূর্তি ধরে রেখেছেন পর্দার মণিকর্ণিকা। স্বজনপোষণ প্রশ্নে বহু দিন ধরেই সোচ্চার কঙ্গনা।

এর আগে সরাসরি তিনি কর্ণ জোহরকে অভিযুক্ত করেছিলেন। সেই টক শো-এর অংশবিশেষ এখন ভাইরাল।সেখানে কঙ্গনার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সইফ আলি খানও। কথা প্রসঙ্গে কঙ্গনা বলে ছিলেন, তাঁর বায়োপিক হলে কর্ণ সেখানে থাকবেন মুভি মাফিয়া হিসেবে।যিনি ইন্ডাস্ট্রিতে নবাগতদের কাজ করতে দেন না। তাঁর মতে কর্ণই যে বলিউডে স্বজনপোষণ নীতির ধারক ও বাহক, সে কথা প্রকাশ্যেই বলে ছিলেন সিনেমার কুইন।সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু নিয়েও কারও নাম না করে কর্ণ জোহর ও তাঁর অনুগামীদের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন কঙ্গনা রানাউত।তাঁর অভিযোগ, কাই পো চে, এম এস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি এবং ‘ছিছোড়ে’র মতো ছবি করা সত্ত্বেও বলিউডে সুশান্তকে স্বীকৃতি দেয়নি।স্বজনপোষণকারীরা সুশান্তকে ধর্তব্যের মধ্যেই আনতে চাননি। সেই হতাশা থেকেই এমন চরম পদক্ষেপ করতে বাধ্য হয়েছেন সুশান্ত, যা কার্যত খুনই, বলছেন কঙ্গনা। নিজের ভেরিফায়েড ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে প্রায় দু’মিনিটের একটি ভিডিয়ো পোস্ট করে কঙ্গনা বলেছেন,সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু আমাদের নাড়িয়ে দিয়েছে। এর মধ্যেও কেউ কেউ অন্য যুক্তি দেওয়ার চেষ্টা করছেন। বলা হচ্ছে মানসিক ভাবে দুর্বল ব্যক্তিরাই অবসাদগ্রস্ত হন এবং আত্মহত্যা করেন।কিন্তু যে ছেলে স্ট্যানফোর্ডের স্কলারশিপ পান, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ট্রান্স পরীক্ষায় যিনি র‌্যাঙ্ক করেন, সেই ছেলের মস্তিষ্ক দুর্বল হয় কী করে?নিজের অভিনয়ের মতো পর্দার বাইরেও সমান সাবলীল কঙ্গনা। স্পষ্টবক্তা নায়িকা কঙ্গনা রানাউত মনে করেন, ইন্ডাস্ট্রিতে অসহায়তা কুরে কুরে দগ্ধ করছিল সুশান্তকে। ফলে অস্তিত্ব সঙ্কটে ভুগতে থাকা অভিনেতা বাধ্য হন সোশ্যাল মিডিয়ায় খোলাখুলি আবেদন করতে। যাতে অনুরাগীরা তাঁর ছবি দেখেন।সুশান্তের অপমৃত্যুকে কার্যত খুন হিসেবেই দেখছেন কঙ্গনা।