ফের মোদীর বায়োপিক

0
6

২০১৯ সালে মুক্তি পাওয়া প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বায়োপিক ফের মুক্তি পেয়েছে কিছু হলে। ছবির নাম ,পিএম মোদি। তবে রাজনৈতিক মহলের মতে, বিহার নির্বাচনের গিমিক হিসাবে ফের ছবিটিকে রিলিজ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীসহ বিজেপির ভাবমূর্তি রক্ষার জন্যই এমনটা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে কানাঘুষো চলছে।

করোনার আতঙ্ক কাটিয়ে ধীরে ধীরে খুলেছে বিভিন্ন রাজ্যের সিনেমা হল। কোভিড বিধি মেনে সিঙ্গল স্ক্রিন ও মাল্টিপ্লেক্সগুলি দর্শকদের জন্য ছবি দেখার ব্যবস্থা হয়েছে। নরেন্দ্র মোদীর বায়োপিকের প্রযোজক সন্দীপ সিংয়ের মতে, গত বছর লোকসভা নির্বাচনের শেষ দফার পর ছবিটি যখন মুক্তি পায় তখন রাজনৈতিক চাপানউতোরের কারণে অনেকেই এটি দেখতে পারেননি। তাই ফের একবার বায়োপিক মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তার কথায়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশের সর্বকালের সেরা প্রধানমন্ত্রী। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে যা প্রমাণিত হয়েছে। তার জীবন সম্পর্কে জানার মতো ভাল কাজ আর কী হতে পারে। উমঙ্গ কুমারের পরিচালনায় এই ছবিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন বিবেক ওবেরয়, এছাড়াও ছিলেন বোমান ইরানি, দর্শন কুমার, মনোজ যোশী, প্রশান্ত নারায়ণন, জারিনা ওয়াহাব, বরখা বিস্ত সেনগুপ্ত, অঞ্জন শ্রীবাস্তবের মতো তারকারা।কিন্তু এবার প্রশ্ন হচ্ছে, যে ছবিটি সুপার ফ্লপ হয়েছিল সেটি আবার রিলিজ করার মানে কী? গতবছর বায়োপিকটি একেবারেই ব্যবসা করতে পারেনি। মোদী আবেগকে ভর করে ছবিটি উতরাতে পারেনি। ছবিটিতে নরেন্দ্র মোদীকে যতটা মহান হিসাবে দেখানো হয়েছে মনমোহন, সোনিয়াসহ বিরোধীদের ততটাই খারাপভাবে দেখানো হয়েছে। যে কারণে খুব একটা পছন্দ করেননি দর্শকরা। মোদী স্তুতি ছাড়া আর কিছুই দেখার মতো ছিল না ছবিতে। তাহলে কেন আবার মুক্তি! অনেক চলচ্চিত্র সমালোচকের মতে, এর একটা কারণ সুশান্ত মৃত্যু তদন্ত থেকে নিস্তার পাওয়ার চেষ্টা করছেন তার বন্ধু সন্দীপ সিং। সন্দীপের বিরুদ্ধে যেভাবে মিডিয়া ট্রায়াল শুরু হয়েছিল, তাতে সুশান্তের পরম বন্ধুর ভাবমূর্তির দফারফা হয়ে গিয়েছে। আবার অন্যভাবে দেখতে গেলে বিজেপির চাপেও মোদীর বায়োপিক ফের রিলিজ করতে পারেন সন্দীপ। তবে দ্বিতীয় বার মুক্তি পাওয়ার পর গত কয়েক দিনের যা বক্স-অফিস রিপোর্ট, তাতে এ বারেও তেমন বলার মতো ব্যবসা করতে পারছে না ছবিটি।