ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ফেসবুকের তথ্য ফাঁসকারী

0
6

মার্কিন সিনেটের পর এবার ব্রিটিশ পার্লামেন্টে সাক্ষ্য দিতে যাচ্ছেন ফেসবুকের প্রাক্তন কর্মী ও অভ্যন্তরীণ নথি ফাঁকারী ফ্রান্সেস হাউগেন। বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী সোশ্যাল মিডিয়াটি ইউজারের নিরাপত্তার থেকে মুনাফা অর্জনকেই বেশি গুরুত্ব দেয়, এই অভিযোগের প্রমাণ সরাসরি ব্রিটিশ পার্লামেন্টের কাছে তুলে ধরবেন তিনি।

২৫ অক্টোবর বিট্রিশ পার্লামেন্টের,অনলাইন সেইফটি বিল  কমিটির সামনে হাজির হবেন হাউগেন। সামাজিক মাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোকে অনলাইনে  ইউজারদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বাধ্য করবে,এমন একটি আইনের প্রস্তাব বিবেচনা করে দেখছে ওই কমিটি।ওই কমিটির কাছে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে অনলাইনে শিশুদের নিরাপত্তার বিষয়টি। ফেসবুকের অভ্যন্তরীণ গবেষণার ভিত্তিতে প্রাক্তন কর্মী হাউগেনের অভিযোগ, শিশুদের মানসিক স্বাস্থ্যের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে ফেসবুকের  সার্ভিস, বাড়ায় সামাজিক বিভক্তি।আর এই বিষয়গুলো নিজস্ব গবেষণা থেকে জেনেও মুখে কুলুপ এঁটে রেখেছে ফেসবুকের শীর্ষ ব্যবস্থাপনা, মুনাফা হ্রাসের ভয়ে নেওয়া হয়নি কোনো কার্যকর পদক্ষেপ। বরাবরই অভিযোগগুলো অস্বীকার করে আসছেন ফেসবুকের শীর্ষ কর্তারা। ফেসবুক প্রধান মার্ক জুকেরবার্গের মতে অভিযোগগুলো,অযৌক্তিক। ফেসবুকের অভ্যন্তরীণ গবেষণা রিপোর্ট ও নথিপত্র ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে সরবরাহ করেছিলেন ফ্রান্সেস হাউগেন। ওই নথিপত্র বিশ্লেষণ করে সিরিজ রিপোর্ট প্রকাশ করা শুরু করে সংবাদপত্রটি। ওই রিপোর্টগুলো থেকেই জনসমক্ষে আসে বিভিন্ন বিষয়ে ফেসবুকের বক্তব্য ও কর্মকাণ্ডের অসামঞ্জস্যতা।এর আগে মার্কিন সিনেটের এক সাবকমিটির সামনে ৫ অক্টোবর সাক্ষ্য দিয়েছেন হাউগেন। সেসময় তিনি অভিযোগ তোলেন, মুনাফা কমে আসতে পারে, এমন কোনো পদক্ষেপ নিয়ে ইউজারদের নিরাপত্তা বাড়াতে রাজি নয় ফেসবুক।