বন্যা ত্রাণে কারচুপি, হাইকোর্টে মানল রাজ্য

0
4

মালদহে বন্যা ত্রাণের টাকা কারচুপির অভিযোগ মেনে নিয়ে হাইকোর্টে রাজ্য সরকার জানিয়েছে ঘটনায় জড়িত রয়েছে পঞ্চায়েত সমিতির প্রধান। সেই প্রসঙ্গ তুলেই প্রশাসন যে কাজ করছে, তা প্রমাণ করতে হাইকোর্টের কাছে আরও এক সপ্তাহ সময় চেয়েছে রাজ্য সরকার।

আর অ্যাটর্নি জেনারেল গোপাল মুখোপাধ্যায় এমন কথা স্বীকার করতেই হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল ভর্ত্সনার সুরে জানতে চেয়েছেন, কেন কাজ হচ্ছে না? বিষয়টা কি শুধুই আইওয়াশ এমন প্রশ্নও তুলেছেন তিনি। ২০১৯ সালে মালদহে বন্যা ত্রাণের টাকা একই অ্যাকাউন্টে পাঠানোর একাধিক ব্যক্তির টাকা পাঠানোর অভিযোগ উঠেছিল। সেই ঘটনায় আদালতের নির্দেশে এফআইআর হলেও, অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। এই অবস্থায় সোমবার তদন্তের বিস্তারিত গতিপ্রকৃতি রিপোর্ট আকারে রাজ্য সরকার হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চে জমা দেয়। কিন্তু রিপোর্ট দেখে সন্তুষ্ট হতে পারেননি প্রধান বিচারপতি। এই অবস্থায় বুধবার নতুন করে জমা দেওয়া রিপোর্টে রাজ্য সরকার বন্যা ত্রাণের টাকা কারচুপির কথা মেনে নিয়ে জানিয়েছে, বিষয়টি অত্যন্ত উদ্বেগের। এদিকে, আবাস যোজনার টাকা পেতে তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি তথা পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামী কাটমানি চাইছেন, এই অভিযোগে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন মালদহের দুই বিজেপি কর্মী। এমন ঘটনায় নরহরি দাস ও পালানু দাস নামে ওই দুই বিজেপি কর্মী পুলিশেরও দ্বারস্থ হয়েছেন।