মোদির সতর্কবার্তার পরেই, দেশে বৃদ্ধি সংক্রমণ-মৃত্যু 

0
8
১০০ কোটি ভ্যাকসিনেশনের পর আত্মতুষ্টি হলে সংকট ফিরে আসবে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এহেন সতর্কবাণীর পরেই দিনই দীপাবলিতে দেশে কোভিড সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে ৮ শতাংশ। একইসাথে দেশে মৃত্যু হয়েছে ৫০ শতাংশ।
বস্তুত, প্রধানমন্ত্রী সতর্ক করে বলেছিলেন ১০০ কোটি ভ্যাকসিনেশনের পর যদি ঢিলেমি হয় তবে নতুন সঙ্কট আসতে পারে। কারণ দেশের ৪০ টির বেশি জেলায় ধীর গতিতে টিকাকরণ হয়েছে। যার দরুন উল্লেখ্য, ৪৫টি জেলার টিকাকরণ নিয়ে রীতিমত ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। করোনা ভ্যাকসিনেশনে পিছিয়ে পড়া ৪৫টি জেলার মধ্যে রয়েছে মহারাষ্ট্রের ৫টি, মেঘালয়ের ৪টি, অরুণাচল প্রদেশের ৬টি, ঝাড়খণ্ড, মণিপুর ও নাগাল্যান্ডের ৮টি করে এবং অসম, ছত্তিশগড়, হরিয়ানা, মিজোরাম, তামিলনাড়ু ও দিল্লির ১টি করে জেলা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বৃহস্পতিবারের প্রকাশিত পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪৬১ জনের। এর মধ্যে দক্ষিণের রাজ্য করলেই মৃত্যু হয়েছে ৩৬২ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজার ৮৮৫। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনায় মোটা মৃত্যু হয়েছে ৪ লক্ষ ৫৯ হাজার ৬৫২ জনের। দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩ কোটি ৪৩ লক্ষ ২১ হাজার ২৫ জন। দেশে এখন অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা ১ লক্ষ ৪৮ হাজার ৫৭৯। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুসারে মহারাষ্ট্রে গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১৯৩ জন। সেখানে রাজ্য মৃত্যু হয়েছে ৩৯ জনের। একইসাথে রাজধানী দিল্লিতে গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪১ জন। তবে গত ২৪ ঘন্টায় দিল্লিতে একজনেরও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।যা সত্যির স্বস্তিদায়ক। তামিলনাড়ুতে গত কয়েক দিনে হাজারের নীচেই থাকছে সংক্রমণ। তবে দুর্গাপুজোর পর পশ্চিমবঙ্গে তা বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আক্রান্ত ৯১৯ জন। এরইমধ্যে দেশব্যাপী টিকা অভিযানে এ পর্যন্ত ১০৭ কোটিরও বেশি মানুষ টিকা পেয়েছেন। এসবের মধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হুঁ কোভ্যাক্সিনকে জরুরি অবস্থায় ছাড় দিয়েছে।