তারামায়ের আবির্ভাব তিথি, তারাপীঠে ভক্তের ঢল

0
12
তারামায়ের আবির্ভাব তিথিতে ভক্তের ঢল নেমেছে তারাপীঠে। শুক্লা চতুর্থশীতে তারা মায়ের আবির্ভাব তিথি হিসেবেই ধরা হয়। সকালেই গর্ভগৃহ থেকে তারা মাকে নিয়ে আসা হয়েছে বিরাম মঞ্চে।

দিনভর এখানেই পূজা উপাচার পালন করা হবে। মকাল থেকেই ভক্তদের ভিড় জমেছে। কোভিড বিধি মেনে ভিড় নিয়ন্ত্রণও করা হচ্ছে। ভোরেই মঙ্গলারতি দিয়ে পূজার্চনা শুরু হয়েছে। কথিত আছে পাল রাজত্বের সময় স্বপ্নে তারা মায়ের নির্দেশ পেয়ে চতুর্দশীতে শ্মশান থেকে তাঁর মূর্তি এনে মন্দিরে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন জযয়দত্ত সওদাগর। সেই উপলক্ষ্যে প্রতি বছরই তারাপীঠে বিশেষ পুজোর আয়োজন করা হয়। শ্বেত শিমুল বৃক্ষের তলায় পঞ্চমুন্ডির আসনের নীচে মায়ের শীলামূর্তি রয়েছে। শুক্লা চতুর্দশীর এই তিথিতেই সেই মূর্তি উদ্ধার করে মন্দির প্রতিষ্ঠা করেছিলেন জয় দত্ত। দিনভর বিরামমঞ্চে থাকার পর বিকেলে আরতির পর মাকে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয় মূল মন্দিরে। স্নানের পর নবরুপে সাজানো হয় দেবমূর্তিকে। রীতি অনুযায়ী দিনভর উপোস থাকেন তারা মা। ফল-মিষ্টিই দেওয়া হয় মাকে। মহাভোগ তোলা থাকে রাতের জন্য। সকালে মঙ্গলারতির পর লুচি, মিষ্টি, সুজি দিয়ে দেওয়া হয় শীতল ভোগ। রাতে খিচুড়ি, পোলাও, পাঁচরকম ভাজা, মাছ-মাংস দিয়ে ভোগ দেওয়া হবে।