বিশ্বের সবচেয়ে দামি কফি 

0
8

সকালে ঘুম থেকে উঠে,বিকালে আড্ডায় বা সন্ধ্যায় কফি পান করতে পছন্দ করেন না এমন মানুষের সংখ্যা কম।এই কফির প্রথম উৎপত্তি হয় ইথিওপিয়ায় এ কথা অনেকেরই জানা।তার পরে ইউরোপ হয়ে সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়ে এই পানীয়।

নানা দেশে নানা রকম কফি পাওয়া যায়।সেই হিসেবে আছে দামেরও ব্যবধান। এই যেমন কোনা কফি,হাওয়াইয়ের এই কফির প্রতি কিলোগ্রামের দাম প্রায় ৬হাজার টাকা।এই কফির দানা অন্য কোথাও পাওয়া যায় না বলে এর দাম এত বেশি।এরপর, লস প্লেনস, এল সালভাদরে এই কফির চাষ হয়। চাষ করেন একজন মাত্র ব্যক্তি। তার নাম সার্জিয়ো তিকাস ইয়েইয়েস। কফিটির দাম ৭হাজার টাকা প্রতি কিলোগ্রাম।তালিকায় আছে ,জ্যামাইকান মাউনটেন ব্লু ,জামাইকায় এই কফির চাষ হয়।কিন্তু সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয় জাপানে। প্রত্যেক কিলোগ্রামের দাম প্রায় ৮ হাজার টাকা।তালিকা আরও দীর্ঘ, ফাজেন্দা সান্তা ইনেস, একটু মিষ্টি স্বাদের এই কফির চাষ হয় শুধুমাত্র ব্রাজিলে। প্রতি কিলোগ্রামের দাম সাড়ে আট হাজার টাকার কাছাকাছি।আছে, সেন্ট হেলেনা,আটলান্টিক মহাসাগরের ছোট্ট দ্বীপ সেন্ট হেলেনা।সেখানেই চাষ হয় এই কফির। নেপোলিয়নও ভক্ত ছিলেন এই কফির। দাম কিলোগ্রাম প্রতি ১২ হাজার টাকার কাছাকাছি। আছে,এসমারাল্ডা গেইসা ,পানামার উত্তরেই শুধু এই কফির চাষ হয়। প্রতি কিলোগ্রামের দাম প্রায় ৩০ হাজার টাকার কাছাকাছি।ওসপিনা,কলম্বিয়ার সবচেয়ে পুরনো কফি ,প্রতি কিলোগ্রামের দাম প্রায় ৩৫ হাজার টাকার কাছাকাছি।অন্যদিকে,ফিনকা এল এনহেরতো কফির বিশেষত্ব এর দানা বিশেষ কায়দায় ধোওয়া হয়। তাতে ফ্লেভার,আরোমা আর গন্ধ বাড়ে। প্রতি কিলোগ্রামের দাম প্রায় ৯০ হাজার টাকার কাছাকাছি।এছাড়া আছে,ব্ল্যাক আইভোরি কফি, থাইল্যান্ডের এই কফিটি চাষের পদ্ধতি অদ্ভুত।হাতিদের এই কফি খাওয়ানো হয়। হাতির পেটে কফির দানার সঙ্গে হাতির পাচন রস মেশে।তার পরে সেই দানা যখন হাতির মলের সঙ্গে বেরিয়ে আসে, সেটি সাফ করে বিক্রি করা হয়।প্রতি কিলোগ্রামের দাম ১ লাখ টাকার কাছাকাছি।পাশাপাশি,লুয়াক কফি, ইন্দোনেশিয়ার এই কফিটিও ব্ল্যাক আইভোরি কফির মত করে চাষ করা হয়।হাতির পরিবর্তে এখানে ব্যবহৃত হয় বিশেষ প্রজাতির বিড়াল।তারা বেছে সবচেয়ে মিষ্টি দানাগুলো খায়। এই কফির দাম প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার টাকা প্রতি কিলো ।